সূরা হজের স্ন্যাপশট -২

Share this article
সূরা হজের রুকু ২

আয়াত ১১
আয়াতটি ধর্ম ব্যবসায়ীদের মুখোশ উন্মোচনকারী। যারা আল্লাহর ইবাদতকে পেশা হিসেবে গ্রহণ করেছে। ইসলামকে লাভ-লোকসানের নিক্তিতে পরিমাপ করে। দ্বীন বেচে দিন খায়। ইসলামের লাইমলাইটে মুনাফা অর্জিত হলে তারা খোশ মেজাজে থাকে, একটু বিপত্তির আভাস পেলেই পিছটান দেয়। এদের দুনিয়া ও আখেরাত উভয়টিই বরবাদ।

আয়াত ১২ ও ১৩
তারা মূলত এমন বস্তুর কাছে নিজেদেরকে সঁপে দিয়েছে যা তাদের না কোনো উপকার করতে পারে, না পারে ক্ষতি করতে। এমন বিষয়ের কাছে তারা মস্তিষ্ক বন্ধক রেখেছে যা তাদের লাভ-ক্ষতি কিছুরই ক্ষমতা রাখেনা। পরন্তু, এরা এমন ব্যক্তিদের কাছেও আশ্রয় খোঁজে যাদের কারণে আখেরে বরবাদি ছাড়া আর কিছুই অবশিষ্ট থাকেনা। যাদের ছায়ায় তারা নিজেদের নিরাপদ ভাবতো সেই ছায়াটুকুই পরে বেইমানি করে বসে। মনিব ও ভৃত্য উভয়েই ঘৃণ্য অস্তিত্বতে পরিণত হয়।

আয়াত ১৪
আল্লাহ্‌ তাঁর নিজ ইচ্ছাবলেই ঈমানদার ও সৎকর্মশীল ব্যক্তিদেরকে জান্নাত প্রদান করবেন।

আয়াত ১৫
যে ধারণা করে, আল্লাহ্‌ তাঁর প্রিয় বান্দাকে সাহায্য করবে না, সে আসমানে উঠে আসুক, এসে আল্লাহ্‌ ও তাঁর প্রিয় বান্দার সম্পর্কের রজ্জু কেটে দিক যদি পারে। এতেও যদি তার হিংসা ও চক্রান্ত অস্তমিত হয়!

আয়াত ১৬ ও ১৭
যার হেদায়াতের ইচ্ছা আল্লাহ্‌ করেন, তার হেদায়াত হয়ে যায়। তিনি সবকিছু বিশদভাবেই নাযিল করেছেন। সুতরাং, ঈমানদার, ইহুদি, নাসারা, সায়েবী, অগ্নি-উপাসক ও মুশরিক নির্বিশেষে সকলের ব্যাপারে আল্লাহ্‌ কেয়ামতের দিন চূড়ান্ত ফায়সালা গ্রহণ করবেন।

আয়াত ১৮
অসংখ্য মানুষের পাশাপাশি, এই আসমান-জমিনের প্রতিটি অস্তিত্ব আল্লাহর সামনে নতজানু হয়, হোক তা অস্পৃশ্য চন্দ্র-সূর্য-তারকা কিংবা নাগালের পাহাড়-বৃক্ষ-জীববৈচিত্র। সকলেই মহান রব্বের নিখুঁত অংকের কাছে মাথানত করতে বাধ্য হয়। তবে অধিকাংশ মানুষ যারা লাঞ্ছিত হবার ছিলো তাদের জন্য সম্মানের কিছুই নেই। তাদের জন্য শাস্তি অবধারিত হয়েই আছে।

আয়াত ১৯, ২০, ২১ ও ২২
বদর যুদ্ধের সূচনাপর্বে সম্মুখ মল্লযুদ্ধে যারা লড়েছিলেন উভয় পক্ষই নিজেদের রব্বের দোহাই দিয়ে মাঠে নেমেছিলেন। কিন্তু একদল তো মুখে রব্বের নাম জপলেও অন্তরে ছিলো কুফরি। এদের জন্যে জাহান্নামের অগ্নি-জামা প্রস্তুত হয়ে আছে। আছে জ্বলন্ত তরল অগ্নি-পানীয়। যা তাদের পাকস্থলী সমেত চামড়া গলিয়ে দিতে প্রস্তুত। আর এই আযাব থেকে পালিয়ে যাওয়ারও উপায় নেই। ছুটতে চাইলেই জাহান্নামের হাতুড়ি দিয়ে তাদেরকে পুনঃস্থাপন করা হবে। আগুনের আযাব আস্বাদন না করে উপায় নেই।

ফেসবুকে প্রথম পর্ব পড়ুন এখানে

প্রথম পর্ব পড়ুন এই লিঙ্কে

Share this article